1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেসক্লাবের ভার্চুয়াল সাধারণ সভা অনুিষ্ঠত : অভিষেকের প্রস্তুতি হাইকোর্টের নির্দেশে কেশবপুরে অবৈধ “রোমান ব্রিকস” ভেঙ্গে দিল প্রশাসন মাদ্রিদে হবিগঞ্জবাসীর মিলন মেলায় মুখরিত লাভপিয়েছ মণিরামপুরের জুড়ানপুর বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষককে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষরে বাঁধা মালিতে জাতিসংঘ শান্তিপদক পেলেন বাংলাদেশের ১৩৯ জন শান্তিরক্ষী কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা

মনিরামপুরে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে নিহত-২, পেট্্েরাল বোমা, ককটেল ও অস্ত্র-গুলি উদ্ধার, ৪ পুলিশ আহত

  • আপডেট: বুধবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৫
  • ৩২৬ দেখেছেন

Monirampur Picture 18.02যশোরের মনিরামপুরে যৌথ বাহিনীর অভিযানে দুই বিএনপি কর্মী আটকের পর পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশের ৪ সদস্য গুরুতর আহত হয়েছে। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১২টি পেট্রোল বোমা, ৯টি ককটেল এবং ১টি পিস্তল, ১টি ওয়ান-শ্যুর্টারগান ও ৪ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার বিকালে যৌথ বাহিনী অভিযান চালিয়ে উপজেলার ঢাকুরিয়া ইউনিয়নের গুপের বাজার থেকে জয়পুর গ্রামের মৃত. বাবর আলী মোল্যার ছেলে বজলুর রহমান (৪২) ও একই গ্রামের হাতেম আলী দফাদারের ঘর-জামাই আবু সাঈদ (৪৬) কে আটক করে। আবু সাঈদ খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলার গোবীন্দকাটি-কাঁঠালতলা এলাকার বাবর বিশ্বাসের পুত্র। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা থাকায় সে দীর্ঘদিন এ এলাকায় আত্মগোপনে থাকতো।
মনিরামপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোল্যা খবীর আহমেদ ও যশোর পুলিশের মূখপাত্র এএসপি রেশমা শারমীন জানান, একাধিক মামলার আসামী বজলু ও সাঈদকে গ্রেফতারের পর মনিরামপুর থানা হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ করতে আনা হয়। এক পর্যায় তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী অস্ত্র উদ্ধার ও অন্যান্য আসামীদের ধরতে উপজেলার বেগারীতলা নামক স্থানে পৌছলে ওই সময় তাদেরকে ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্য ওঁৎ পেতে থাকা তাদের সহযোগীরা পুলিশকে ল্য করে গুলি চালায়।
পুলিশও এ সময় পাল্টা গুলি চালালে বজলুর রহমান ও আবু সাঈদ ঘটনাস্থলে নিহত হয়। এ সময় মনিরামপুর থানার এসআই তাসমীম, কনষ্টেবল জিয়াউর, আলম ও রাইসুল হোসেন গুরুতর আহত হয়। আহতদের ওই রাতেই মনিরামপুর উপজেলা কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ১২টি পেট্রোল বোমা, ৯টি ককটেল, ১টি পিস্তল, ১টি ওয়ান-শ্যুর্টারগান ও ৪ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে।
মনিরামপুর উপজেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি, ঢাকুরিয়া ইউনিয়ন বিএনপি’র সভাপতি এবং ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জি.এম মিজানুর রহমান জানান, নিহত বজলু ও সাঈদ একই ইউনিয়ন বিএনপি’র সাধারণ কর্মী ছিল।
গতকাল সকালে মনিরামপুর থানার সামনে নিহতদের লাশ দেখতে এসে স্বজনদের আহাজারি ল্য করা যায়। এ সময় নিহতদের স্বজনরা সাংবাদিকদের নিকট দাবী করেন, তাদেরকে পরিকল্পিতভাবে উপযুপরি কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তাদের শরীরে অসংখ্য জখমের চিহ্ন রয়েছে। নিহতদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য পুলিশ যশোর মর্গে প্রেরণ করেছেনে।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022