1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

মণিরামপুরে আওয়ামীলীগের নেতা সেজে এক জন মোটা অংকের টাকায় ভিজিডি কার্ড বিভিন্ন অভিযোগ

  • আপডেট: বুধবার, ৬ মে, ২০১৫
  • ২৭৫ দেখেছেন

মণিরামপুরে দুই ইউপি মেম্বরের বিরুদ্ধে মোটা অংকের টাকা ঘুষ নিয়ে যোগ্যদের বাদ দিয়ে অযোগ্য স্বচ্চল ব্যাকিদের মাঝে ভিজিডি কার্ড বিতরণের অভিযোগ উঠেছে। এলাকার সচেতন যুব সমাজ একাজের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে দ্রুত গতিতে নতুন তালিকা তৈরী করে যোগ্যদের মাঝে কার্ডগুলো বিতরণের জোর দাবী তুলেছে। ovi
সুত্রে জানাযায়, উপজেলার খেদাপাড়া ইউনিয়নের সংতি মহিলা মেম্বর আরুতি রাণী এবং ৭ নং ওয়ার্ড মেম্বর মিলন সদ্য ঘোষিত ( মাহমুদকাটি-কদমবাড়িয়া) ওয়ার্ডের যোগ্য লোকদের বাদ দিয়ে টাকার বিনিময়ে নাশকতাকারী এবং স্বচ্চল লোকদের মাঝে ১৩ টি ভিজিডি কার্ড বিতরণ করেছে। একাজের জন্য তারা প্রত্যেকের নিকট থেকে ২ হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছে। যারা তাদের চাহিদা মত টাকা দিতে পারেনি তাদেরকে এই কার্ড প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত করেছে। সুত্রটি জানিয়েছে,কদমবাড়িয়ার তুলনায় মাহামুদকাটি একটি বৃহৎ গ্রাম। মাহমুদকাটি গ্রামে ৪ টি পাড়া রয়েছে এবং প্রতিটি পাড়ায় কার্ড পাওয়ার একাধিক যোগ্য ব্যক্তি রয়েছেন। সেই হিসাবে কদমবাড়িয়ায় ৬ টি এবং মাহামুদকাটি গ্রামে ৭ টি কার্ড বিতরণের জন্য স্থানীয় আ’লীগ-যুবলীগসহ ওয়ার্ড প্রতিনিধি-গন দুই মেম্বরকে পরামর্শ দিয়েছেন। অভিযোগ রয়েছে,এই দুই মেম্বর তাদের পরামর্শ উপো করে টাকা নিয়ে মাহামুদকাটি গ্রামের এক পাশ থেকে নিজেদের পছন্দের লোকদের বেছে নিয়ে এই ৭ টি কার্ড বিতরণের জন্য ৭ জনের নাম তালিকাভুক্ত করেছে। এই সাত জনের মধ্য থেকে ১ জনের নাম বাদ দিয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে কদমবাড়িয়া গ্রামের এক ব্যক্তির নামে কার্ডটি বরাদ্ধ দিয়েছে এই দুই মেম্বর। সে হিসাবে মাহমুদকাটি বড় গ্রাম হলেও এদের অর্থলোভের কারণে কদমবাড়িয়া পেল ৭ টি কার্ড এবং মাহমুদকাটি পেল ৬ টি কার্ড।
বিষয়টি জানতে চাইলে স্থানীয় আ’লীগ নেতা রফিক ও যুবলীগ নেতা নূরু জানায়, এই দুই মেম্বর টাকা খেয়ে স্বচ্চলদের মাঝে কার্ডগুলো বিতরণ করতে যাচ্ছে। আমরা এই তালিকা বাদ দিয়ে নতুন করে তালিকার দাবী জানাচ্ছি।
গতকাল সন্ধ্যায় আরোতি রাণীর সাথে আলাপ কালে তিনি জানান,অভিযোগ সত্য নয়। আমি একা কার্ডগুলোর তালিকা দেয়নি, আ’লীগের লোকজনও তাদের পছন্দমত একটি করে নাম দিয়েছেন। মেম্বর মিলনের সাথে সরাসরি আলাপ করতে চাইলে তিনি দেখা করতে রাজি হননি।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022