1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

দুই বছরেও হয়নি মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি, নেতা-কর্মীদের মাঝে হতাশা

  • আপডেট: শুক্রবার, ১৫ জুলাই, ২০১৬
  • ৩৪৬ দেখেছেন

22মনিরুজ্জামান টিটো :
প্রায় দু’বছরেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠিত হয়নি মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের। শুধুমাত্র সভাপতি পদ দিয়েই চলছে উপজেলা কমিটির কার্যক্রম। দীর্ঘ ১১ বছর পর উক্ত কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হলেও, আজও পূর্ণাঙ্গ কমিটি না হওয়ায় নেতা-কর্মীদের মাঝে দেখা দিয়েছে রাজনৈতিক স্থবিরতা।
জানা যায়, ২০০৩ সালের ১৮ জুলাই তৃণমূল কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন করা হয়। সে সময়ে সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব কাজী মাহমুদুল হাসান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান এমএম নজরুল ইসলাম ও সাবেক সভাপতি সরদার বাহাদুর আলী এবং সাধারন সম্পাদক পদে প্রয়াত গোলাম মোস্তফা ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলুর মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হলেও সমঝোতার মাধ্যমে কমিটিতে আলহাজ্ব কাজী মাহমুদুল হাসানকে সভাপতি এবং প্রয়াত গোলাম মোস্তফা সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়। এর প্রায় ১১ বছর পর গত ২০১৪ সালের ২৮ নভেম্বর কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। এদিন স্থানীয় পৌর চত্বরে অনুষ্ঠিত সকাল ও বিকেলে দু’পর্বের সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন যশোর জেলা আওয়ামীলীগের তৎকালীন সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য আলী রেজা রাজু। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য এস.এম.কামাল হোসেন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বর্তমান জেলা সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, সাবেক সংসদ সদস্য খান টিপু সুলতান, সাবেক সংসদ সদস্য এড. পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য, আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নেতা আবদুল মজিদ, কামরুল হাসান বারী, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন চাকলাদার, সহ-সভাপতি কামরুজ্জামান চুন্নু, মনিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলু প্রমুখ। প্রথম অধিবেশনে অনুষ্ঠানের সভাপতি আলী রেজা রাজু কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করেন। এরপর দ্বিতীয় অধিবেশনকে ঘিরে শুরু হয় নানা জল্পনা-কল্পনা। তৃণমূল পর্যায়ে মতামতের ভিত্তিতে, নাকি সমঝোতায় হচ্ছে বিকেলের কাউন্সিল এনিয়ে টানটান উত্তেজনা ছিলো নেতা-কর্মীদের মাঝে। ওই কাউন্সিলে সরাসরি কাউন্সিলরদের মতামতের ভিত্তিতে ওই কমিটি গঠনের ব্যাপারে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের জোর দাবি ছিলো। একপর্যায়ে সভাপতি পদে মণিরামপুর আওয়ামীলীগের জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব মণিরামপুর মহিলা কলেজের সাবেক সফল অধ্যক্ষ আলহাজ্ব কাজী মাহমুদুল হাসান পুনরায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হলেও জটিলতা দেখা দেয় সাধারন সম্পাদক পদে। প্রয়াত গোলাম মোস্তফা ও উপজেলা চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলুর মধ্যে শুরু হয় তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা। কাউন্সিলরদের মতামতে সাধারন সম্পাদক নির্বাচনের দাবি উপেক্ষা করে সেদিন ওই দু’প্রার্থীকে নিয়ে স্থানীয় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির রেস্ট হাউজে বসেন উপস্থিত কেন্দ্রিয় নেতৃবৃন্দ। এক পর্যায়ে সমঝোতার মাধ্যমে পুনরায় সাধারন সম্পাদক হিসেবে গোলাম মোস্তফার নাম ঘোষনা করা হয়। এঘটনার বছর খানেক পর উপজেলা আওয়ামীলীগের আমৃত্যু সাধারন সম্পাদক গোলাম মোস্তফা ঢাকা সফরকালে হৃদযন্ত্রের ক্রীয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যু বরন করেন। এরই পরপরই উপজেলায় দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল মণিরামপুর পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের মতো গূরুত্বপূর্ণ দু’ দু’টি স্থানীয় সরকার নির্বাচন। এ নির্বাচনে মেয়র পদে বিজয় লাভ করেন বর্তমান সভাপতি আলহাজ্ব কাজী মাহমুদুল হাসান। উপজেলার ১৭ টি ইউনিয়নের মধ্যে ১৬ টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্তমান কমিটির সভাপতি ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব কাজী মাহমুদুল হাসান এবং উপজেলা চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলুর নেতৃত্বে এ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থীদের ব্যপক বিজয় অর্জিত হয়েছে। তবে প্রায় দু’বছর পার হতে চললেও পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন না হওয়ায় সাংগঠনিক ভাবে দূর্বলতা সৃষ্টি হতে চলেছে উপজেলাসহ ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতৃত্বে। আওয়ামী রাজনৈতিক স্থবিরতা দেখা দিয়েছে তৃণমূল রাজনীতিতে। এবিষয়ে খানপুর ইউনিয়ন আওয়ামীগ সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান গাজী মোহাম্মদ আলী বলেন, সাংগঠনিকভাবে উপজেলা আওয়ামীলীগের কোন কার্যক্রম আছে বলে আমার মনে হয় না, আমরা এখন খানিকটা নেতৃত্ব শুণ্য হয়ে দিশেহারা। পূর্ণাঙ্গ কমিটি তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিতে গঠন করার দাবি জানান তিনি। রোহিতা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি হাফিজ উদ্দিন বলেন, ত্যাগী নেতৃবৃন্দের আজ আর মূল্যায়ন নেই, কমিটি নিয়েও কারো মাথা ব্যাথা নেই, এসুযোগে বহিষ্কৃত আর নব্য আওয়ামীলীগের দাপটে ত্যাগীরা কোনঠাষা, আমারতো মনে হয় মণিরামপুরে আওয়ামীলীগের রাজনীতি বিলুপ্তীর পথে। এ বিষয়ে যশোর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন জানান, আপাতত মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি হচ্ছে না, কেন্দ্রিয় কাউন্সিলের আগে কোন কিছুই করা যাচ্ছেনা।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022