1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
হাইকোর্টের নির্দেশে কেশবপুরে অবৈধ “রোমান ব্রিকস” ভেঙ্গে দিল প্রশাসন মাদ্রিদে হবিগঞ্জবাসীর মিলন মেলায় মুখরিত লাভপিয়েছ মণিরামপুরের জুড়ানপুর বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষককে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষরে বাঁধা মালিতে জাতিসংঘ শান্তিপদক পেলেন বাংলাদেশের ১৩৯ জন শান্তিরক্ষী কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল

জরুরি পণ্য সরবরাহ কাজে নিয়োজিত ট্রাক চালকরা চরম বিপাকে

  • আপডেট: বৃহস্পতিবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২০
  • ৮৯৯ দেখেছেন

এস এম মুনীরুজ্জামান মুনীর ।।
বর্তমান বিশ্বের সাথে বাংলাদেশও করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত !সবাইকে বাড়িতে থাকতে বলা হচ্ছে। ঢাকা নারায়নগঞ্জ হতে আগতদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হচ্ছে, না মানলে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন।
বর্তমানে যে সকল ট্রাক চালক জীবনের ঝুঁকি নিয়ে খাদ্য সামগ্রী ঢাকা নারায়নগঞ্জ পৌঁছে দিচ্ছেন ফিরে এসে তারা পড়ছেন বিপদে, গ্রামের মানুষ তাঁদের গ্রামে ঢুকতে দিচ্ছেন না।
দুটো বেশী উপার্জনের আশায় চিড়া গুড় খেয়ে ট্রাকে করে জরুরী খাদ্যদ্রব্য পৌঁছে দিয়ে গাড়িতেই ঘুমোচ্ছেন। সবসময় আতংক নিয়ে কর্ম পরিচালনা করছেন ।
একজন ট্রাক মালিককে সেদিন দেখলাম গামলাতে করে ভাত নিয়ে যাচ্ছেন ট্রাকের ভেতরে থাকা ক্ষুধার্ত মানুষটিকে খাওয়ানোর জন্য, প্রশ্ন করলাম এ অবস্হা কেন ?
“ট্রাকমালিক বল্লেন, তারা দুদিন ধরে ভাত খায়নি। চিড়া গুড় খেয়ে আছেন, ট্রাকচালকের গ্রাম থেকে হুমকি দিচ্ছে গ্রামে যেন তারা না যায়।
তিনি আরো বলেন, “ট্রাকচালকরাও যথাযত স্বাস্হ্যবীধি মেনেই চলছেন, যেখানেই ভাড়া নিয়ে যাচ্ছেন গাড়ি থেকে তাঁরা নামছেনই না, পণ্য খালাশ হলে আবার চলে আসছেন ।
কঠিন বাস্তব কথা হলো নিত্য প্রয়োজনীয় ঢাকা বা নারায়ণগঞ্জ না গেলে যেমন তারা খাদ্য সংকটে ভুগবেন তেমনি এই পন্য পাঠানো না গেলে এলাকার কৃষকের সর্বনাশ হবে। জরুরী খাদ্যদ্রব্য পৌঁছে দেবার ফলে অন্তত কাঁচা বাজারটা স্হিতিশীল।
তাদের জন্য বিশ্রামাগারের ব্যাবস্হা। তাঁদের খাবারের ব্যাবস্হা এইমুহুর্তে জরুরী। ট্রাক ড্রাইভাররা আর্থিক সচ্ছলতার পাশাপাশি মানবিক কাজে নিয়োজিত আছেন তাঁরা’ই করোনা যুদ্ধের প্রকৃত সৈনিক।
আসুন এই মুহুর্তে আমরা সবাই মানবিক হই। সৃষ্টিকর্তাকে স্মরণ করি। অন্ধকারের পরেই আলো আসে।আমরাও একদিন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাবো।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022