1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেসক্লাবের ভার্চুয়াল সাধারণ সভা অনুিষ্ঠত : অভিষেকের প্রস্তুতি হাইকোর্টের নির্দেশে কেশবপুরে অবৈধ “রোমান ব্রিকস” ভেঙ্গে দিল প্রশাসন মাদ্রিদে হবিগঞ্জবাসীর মিলন মেলায় মুখরিত লাভপিয়েছ মণিরামপুরের জুড়ানপুর বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষককে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষরে বাঁধা মালিতে জাতিসংঘ শান্তিপদক পেলেন বাংলাদেশের ১৩৯ জন শান্তিরক্ষী কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা

মণিরামপুরে আ’লীগ নেতা ইউপি মেম্বারের বিরুদ্ধে ত্রাণ আত্মসাতের অভিযোগ : সামাজিক বয়কট

  • আপডেট: মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৬১৭ দেখেছেন

বিশেষ প্রতিনিধি।।
মণিরামপুর উপজেলার ১২নং শ্যামকূড় ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি ও স্থানীয় ইউপি মেম্বার ইউনুস আলীর বিরুদ্ধে ত্রাণের মালামাল আত্মসাতসহ বহুবিধ অভিযোগ উঠেছে। মহামারী করোনা মোকাবেলায় সরকারি বরাদ্দ ও বিভিন্ন দানশীল ব্যক্তি অসহায় দুস্থ্য ও কর্মহীন শ্রমজীবি মানুষের জন্য যে ত্রাণ সামগ্রী বরাদ্দ দিচ্ছেন সে সব ত্রাণ সামগ্রী মেম্বার ইউনুস আলী গ্রহণ করে যথাযথ বন্টন না করে নিজের আখের গোছাতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। এলাকার অসহায় বঞ্চিত একাধিক ব্যক্তি তার বিরুদ্ধে ত্রাণের মালামাল আত্মসাতসহ বহুবিধ অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগে জানা যায়, গত সোমবার রাতে মেম্বার ইউনুস আলী তার এলাকায় ত্রাণ বিতরনের জন্য যশোরের এক দানবীরের বরাদ্দকৃত ৩০ জনের ত্রাণ সামগ্রী গ্রহণ করে একটি পিকআপ যোগে স্থানীয় মোমিনের বাড়িতে এনে লুকিয়ে রাখেন। মঙ্গলবার সকালে লুকিয়ে রাখা ত্রাণের একটি বস্তা স্থানীয় এক পল্লী চিকিৎসকের স্ত্রীকে দেওয়ার পর এলাকায় মেম্বারের বিরুদ্ধে ত্রাণ আত্মসাতের গুঞ্জন শুরু হয়। স্থানীয় দিনমজুর রাশেদ ও রোস্তম এই ত্রাণ আত্মসাতের খবরটি এলাকায় প্রচার করে। তারা প্রকাশ্যে লোকজনের কাছে জানায়, গত রাতে পিকআপ যোগে ওই ত্রাণ এনে মেম্বার ইউনুস আত্মসাত করার জন্য ড্রাইভারের বাড়িতে লুকিয়ে রেখেছে।

জানা যায়, ওই ত্রাণ পণ্যগুলো রমজান উপলক্ষ্যে অসহায়দের জন্য দেয়। কিন্তু রমজানের আগেই মেম্বার তার পছন্দের লোকের মাঝে গোপনে বিতরন করায় বিপত্তির সৃষ্টি হয়।

তবে সরকারী সকল প্রকার প্রকল্পে মেম্বারের দূর্নীতি দীর্ঘদিনের। এলাকার অনেকেই একই অভিযোগ করেছেন তার বিরুদ্ধে। অধিকাংশেরই অভিযোগ মেম্বার ইউনুস ত্রাণের মাল দেয়ার জন্য তার পছন্দের লোকদের নাম দিয়ে তালিকা করেছে। তালিকা অনুযায়ী ত্রাণ না দিয়ে আত্মসাত করেছেন। অনেকেই তার বিরুদ্ধে টাকা নিয়ে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, ভিজিডি কার্ড করাসহ সরকারী ঘর পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে টাকা নেওয়ারও অভিযোগ তুলেছেন।

এছাড়াও এলাকায় ব্যাপক চাঁদাবাজি, সালিশের নামে অসহায় মানুষের কাছ থেকে টাকা আদায় এবং মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগও তার বিরুদ্ধে অনেক ভুক্তভোগীর। তাছাড়া সামান্য একজন ইউপি মেম্বার হয়েই রাতারাতি অঢেল সম্পদের মালিক এখন ইউনুস আলী। অন্য কোন রোজগারের উৎস্য না থাকলেও গ্রামে আলিশান বাড়িও বানিছেন তিনি। তার অত্যাচারে অনেক নিরীহ মানুষ এলাকা ছাড়াতে বাধ্য হয়েছে। এলাকার প্রতিবাদী জনতা তাই তার বিরুদ্ধে সর্বদলীয় ঐক্য গড়ে তুলেছেন। স্থানীয় এলাকাবাসিসহ আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মীরাও তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষনা করে সামাজিক ভাবে বয়কট করেছেন বলে জানা গেছে। এসব অপকর্মের জন্য এলাকার প্রতিবাদী জনগন ইতিপূর্বে তাকে স্থানীয় বাজারে গণধোলাই দিয়েছিলো বলে জনশ্রুতি রয়েছে।

এসব অভিযোগের বিষয়ে জানার জন্য ইউপি সদস্য ইউনুস আলীর ব্যবহৃত মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোন রিসিভ করে ব্যস্ত আছি বলে ফোন রেখে দেন।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022