ঢাকারবিবার , ১০ মে ২০২০
আজকের সর্বশেষ সবখবর

আইনি জটিলতায় খোলা আকাশের নিচে নষ্ট হতে চলছে উদ্ধারকৃত ৫’শ ৪৯ বস্তা চাল

Tito
মে ১০, ২০২০ ২:৩৯ অপরাহ্ণ
Link Copied!

আইনি জটিলতায় খোলা আকাশের নিচে
নষ্ট হতে চলছে উদ্ধারকৃত ৫’শ ৪৯ বস্তা চাল
বিশেষ প্রতিনিধি।।
মণিরামপুরে সরকারী সিলযুক্ত ৫শত ৫৫ বস্তা চাল উদ্ধারের মাস পার হলেও এখনো নেই চালের কোন গতি হয়নি। আইনি জটিলতায় যশোরের মণিরামপুর থানা চত্ত¡রে খোলা আকাশের নিচে পড়ে থেকে তা নষ্ট হতে চলেছে। গত ৪ এপ্রিল মনিরামপুর পৌর এলাকার একটি চাতালে ট্রাকভর্তি চাল খালাস (আনলোড) করাকালে সরকারি সিলযুক্ত এই বস্তাভর্তি চাল উদ্ধারসহ চাতাল মালিক ও ট্রাক ড্রাইভার পুলিশ উদ্ধার করে। পরবর্তিতে এ ঘটনায় মনিরামপুর থানা পুলিশ বাদি হয়ে মামলার পরে মামলাটি পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় (ডিবি) হস্তান্তর হলেও উদ্ধারকৃত ট্রাকভর্তি চালের কোন গতি হয়নি। থানা চত্ত¡রেই রোদ-বৃষ্টি পেয়ে ট্রাকেই নষ্ট হচ্ছে সেই চাল।
জানাযায়, গত ৪ এপ্রিল শনিবার সন্ধ্যায় পৌর এলাকার যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়ক সংলগ্ন বিজয়রামপুর গ্রামে ভাই ভাই রাইস মিল এন্ড চাতালে ট্রাক ভর্তি সরকারি সিলযুক্ত এ চাল খালাস করাকালে পুলিশ জব্দ করে। এসময় পুলিশ চাতাল মালিক আব্দুল্লাহ আল মামুন ও ট্রাক ড্রাইভার ফরিদ উদ্দীনকে আটক করে। এ ঘটনায় মণিরামপুর থানার এসআই তপন কুমার সিংহ বাদি হয়ে ওই রাতেই অজ্ঞাতানামাসহ আটক দু’জনের নামে মামলা করেন। যার মামলা নং-০৪।
পরদিন রোববার আটক দু’জনের ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (মণিরামপুর) আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ আদালত এদিন শুনানি শেষে আটক দু’জনের ২দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আটত চাতাল মালিক মামুন এই চাল কান্ডে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত খাদ্য কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান মুন্না (সদ্য বদলি), রাইল মালিক সমিতির সভাপতি শহিদুল ইসলাম ও জগদীষ দাসের নাম উল্লেখ করে ১শ’৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেয়। পরবর্তিতে মামুনের বয়ানের ভিত্তিতে এই তিনজনও আসামী হয়। গত ২০ এপ্রিল মামলাটি পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় (ডিবি) হস্তান্তর হয়।
এদিকে চাল উদ্ধারের পর এত কিছু ঘটনা ঘটতে থাকলেও এখন ট্রাকভর্তি সেই ৫শত ৫৫ বস্তা চাল থানা চত্ত¡রে খোলা আকাশের নিচে পড়ে থেকে নষ্ট হতে চলেছে।
উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মোঃ মামুন হোসেন খান বলেন, খোলা আকাশের নিচে ত্রিপল দিয়ে ঢাকা এ চালে একটু পানি লাগলে সব নষ্ট হয়ে যাবে। আর পানি না লাগলে সর্বোচ্চ ৩ মাস ভাল থাকতে পারে।
মণিরামপুর থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, যেহেতু মামলা এখন ডিবি পুলিশের কাছে। সুতরাং এ ব্যাপারে তারাই ভাল বলতে পারবেন।
ওসি (ডিবি) মারুফ আহম্মদ বলেন, আদালতের নির্দেশনা পাওয়া মাত্রই উদ্ধারকৃত চালের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।