ঢাকাশুক্রবার , ১২ ডিসেম্বর ২০১৪
আজকের সর্বশেষ সবখবর

বিএনপি কূটনীতিতে আরেকটি ‘ধাক্কা’

admin
ডিসেম্বর ১২, ২০১৪ ১১:০৩ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

bnp-640x352

বর্তমান সরকারের মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার আগেই বাংলাদেশে আরেকটি নতুন নির্বাচনের ব্যাপারে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ‘নেতিবাচক’ অবস্থান জানার পর মানসিকভাবে বেশ চাপে এবং রাজনৈতিকভাবে অস্বস্তিতে পড়েছে বিএনপি। বিষয়টিকে কূটনৈতিক ক্ষেত্রে দলটির জন্য বড় ধরনের একটা ‘ধাক্কা’ হিসেবে দেখছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

বুধবার (১০ ডিসেম্বর) ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) দূতাবাসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের দক্ষিণ এশিয়া সম্পর্ক বিষয়ক কমিটির চেয়ারপারসন জিন ল্যাম্বার্ট বলেন, প্রতিনিধিত্বমূলক না হওয়ায় ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নতুন নির্বাচনের কথা বলছে না।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের একজন সিনিয়র সদস্যের বক্তব্যের পর বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয় দেখাশোনা করেন এমন নেতারা নড়েচড়ে বসেন। জিন ল্যাম্বার্ট সংবাদ সম্মেলন নিয়ে বুধবার রাতেই গুলশান কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার সঙ্গে কথা বলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. এম ওসমান ফারুক, সাবিহ উদ্দীন আহমেদ ও রিয়াজ রহমান।

দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র জানায়, ঠিক যে মুহূর্তে আরেকটি নতুন নির্বাচন দিতে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টির জন্য বন্ধুভাবাপন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোকে রাজি করাতে জোর লবিং চালাচ্ছে বিএনপি, ঠিক সেই মুহূর্তে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের এ ধরনের অবস্থান দলটির জন্য বড় ধরনের কূটনৈতিক ‘ধাক্কা’ হিসেবেই দেখছে বিএনপির হাইকমান্ড।

তবে দলটির দায়িত্বশীল নেতারা এ বিষয়টিকে আমলে না নেওয়ার ‘ভান’ করছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, নির্বাচন কখন হবে, কী ভাবে হবে তা ঠিক করবে বাংলাদেশের জনগণ।

ইউরোপীয় পার্লামেন্ট তো আর বাংলাদেশের নির্বাচন করে দেবে না। তবে নির্বাচনের পদ্ধতি-প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে তারা তাদের মতামত ব্যক্ত করতে পারেন।

সূত্র জানায়, এর আগে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরিন শারমীন চৌধুরী কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ)-এর চেয়ারপারসন ও সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় এবং জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে বাংলাদেশের সদস্যপদ পাওয়ার পর কূটনৈতিক ক্ষেত্রে প্রথম ধাক্কা খায় বিএনপি।

জানা গেছে, ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর বর্তমান সরকার সম্পর্কে আন্তর্জাতিক মহলে বিএনপি এ ধারণাটিই দেওয়ার চেষ্টা করেছে যে, একতরফা নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় বসা বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের কোনো জনভিত্তি নেই। তারপরও গণতন্ত্র, সুশাসন ও মানবাধিকার নিয়ে কাজ করা কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ), ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়নের (আইপিইউ) নির্বাচনে সরকারের দু’জন প্রতিনিধির জয়, জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে বাংলাদেশের সদস্যপদ পাওয়া, আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ ইউনিয়নের (আইটিইউ) কাউন্সিল সদস্য নির্বাচিত হওয়া, সর্বশেষ বাংলাদেশে আরেকটি নতুন নির্বাচনের ব্যাপারে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ‘নেতিবাচক’ অবস্থান জানার পর রাজনৈতিকভাবে চরম অসস্তিতে পড়েছে বিএনপি।

সূত্র জানায়, বিষয়টি নিয়ে বৃহস্পতিবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুরে হোটেল ওয়েস্টিনে মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডব্লিউ মজিনার সঙ্গে বৈঠক করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শমসের মবিন চৌধুরী ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা রিয়াজ রহমান। তবে ওই বৈঠকের ব্যাপারে মুখ খুলতে রাজি নন তারা।

সূত্র জানায়, সংবাদ সম্মেলনে নতুন নির্বাচনের ব্যাপারে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করার আগে সোমবার (০৮ ডিসেম্বর) রাজধানীর একটি হোটেলে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে একই কথা বলেন জিন ল্যাম্বার্ট। ওই সময় নির্বাচনের স্থায়ী একটি পদ্ধতি বা প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনার জন্য বিএনপি নেতাদের পরামর্শ দেন তিনি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে শমসের মবিন চৌধুরী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাংলানিউজকে বলেন, জিন ল্যাম্বার্টের সঙ্গে সব বিষয় নিয়েই কথা হয়েছে। সেখানে নির্বাচনের প্রক্রিয়া বা পদ্ধতি নিয়ে যেমন কথা হয়েছে, তেমনি বাংলাদেশের জনগণ কখন এবং কী ধরনের নির্বাচন চায়, সে বিষয়েও তাদেরকে (ইইউ প্রতিনিধি) অবহিত করা হয়েছে।

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির সংসদ নির্বাচনের পর থেকেই বিএনপি বলে আসছে, বহির্বিশ্বের কাছে এ নির্বাচন গ্রহণযোগ্যতা পায়নি। বিএনপির নেতারা বক্তৃতা-বিবৃতিতে বর্তমান সরকারকে ‘অবৈধ’ বলে অভিহিত করে আসছেন। তারা আন্দোলনের প্রস্তুতির পাশাপাশি এখনো আশায় বুক বেঁধে আছেন যে, আন্তর্জাতিক মহলের চাপে বা মধ্যস্থতায় শিগগিরই একটি মধ্যবর্তী নির্বাচন হবে।

দলটির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব সম্প্রতি বাংলানিউজকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেনসহ বিশ্বের কোনো গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র বর্তমান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি। বিশ্ব সম্প্রদায় চায় যত দ্রুত সম্ভব আরেকটি নতুন নির্বাচন বাংলাদেশে হোক।

কিন্তু জিন ল্যাম্বার্টের বক্তব্যের ব্যাপারে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের প্রতিক্রিয়া জানতে বৃহস্পতিবার রাতে একাধিকার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এই সাইটে নিজম্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।