1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

মণিরামপুরের ৪ আ’লীগ নেতার নামে মামলার ঘটনায় প্রতিবাদের ঝড়

  • আপডেট: বৃহস্পতিবার, ২০ আগস্ট, ২০২০
  • ৫১৭ দেখেছেন

বিশেষ প্রতিনিধি।।
মণিরামপুরের ৪ আওয়ামীলীগ নেতার নামে মানহানির মামলার ঘটনায় স্যোসাল মিডিয়াতে নিন্দার ঝড় শুরু হয়েছে। কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মাসুমা আকতার পলি, যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আলমগীর হোসেন, মণিরামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সফল আহ্বায়ক ও মামলার স্বাক্ষী মনিরুজ্জামান মিল্টনসহ মণিরামপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা স্যোসাল মিডিয়াতে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য জিয়াউর রহমান জিয়া উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে প্রতিমন্ত্রীকে ব্যবহার করে বাদি হয়ে এই হয়রানিমূলক মামলা দায়ের করেছে বলে তারা উল্লেখ করেছেন। ফেসবুকে তাদের দেওয়া স্ট্যাটাস গুলোতে প্রতিবাদের ঝড় শুরু হয়েছে।
মামলার স্বাক্ষী মণিরামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সফল আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান মিল্টন তার ফেসবুক আইডিতে মামলার ঘটনায় নিন্দা প্রকাশসহ জানিয়েছেন, মামলার ঘটনা সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না। বা তাকে স্বাক্ষী করা হয়েছে সেটাও তিনি পত্রিকার মারফত জানতে পেরেছেন।
তিনি আরোও বলেন, নিজেদের ভেতর ভুল বোঝা-বুঝি সৃষ্টি করতে একটা পক্ষ উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যানসহ আরোও তিন আওয়ামী প্রেমীর নামে মামলা দায়ের করেছে। তিনি অবিলম্বে এ মামলার প্রত্যঅহার দাবি করেন।
ছাত্রলীগ কেন্দ্রিয় সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি মাসুমা আকতার পলি তার ফেসবুক আইডিতে মামলার ঘটনায় কঠোর সমালোচনা করেন। মণিরামপুরের আওয়ামী ঘরোনার মানুষের প্রিয় মানুষ, সাবেক তুখোড় ছাত্রনেতা ও উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হোসেন, সাবেক তুখোড় ছাত্রনেতা কামাল হোসেন, একাধিকবার নির্বাচিত ও জনপ্রিয় ইউপি সদস্য প্রনব বিশ্বাস এবং পৌর যুবলীগের ৪ নং ওয়ার্ডের সাবেক সভাপতি শরিফুল ইসলামের নামে দায়ের করা মামলা ষড়যন্ত্রমূলক উল্লেখ করে তিনি তা প্রত্যাহারের দাবি ও নিন্দা জানান।
এব্যাপারে মামলার এক নং বিবাদী মণিরামপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হোসেন বলেন, মামলায় উল্লেখিত ফেসবুক আইডি ’’জিলানী শেখ’’ ফেসবুকে প্রতিমন্ত্রীকে নিয়ে নানা ধরনের পোস্ট করে, সেগুলো অন্য ফেসবুক ব্যবহারকারীর মতো আমিও দেখি। তবে আমি এই আইডির কাউকে চিনিনা, বা জানিওনা। তাছাড়া আমার মণিরামপুরে কোন অফিস নেই। তিনি আরোও বলেন, আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষানিত হয়ে বা আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে প্রতিমন্ত্রীকে ব্যবহার করে এই মামলা করা হয়েছে। এক পর্যায়ে সাবেক তুখোড় ছাত্রনেতা মিকাইল হোসেন বলেন, জিলানী শেখ নামের আইডি খুঁজে বের করতে না পেরে আমাকে জিলানী সাঁজানোর অপচেষ্টা করা হচ্ছে। প্রতিমন্ত্রী সরকারের দ্বায়িত্বশীল পদে থেকেও সামান্য একটা ফেসবুক আইডি খুঁজে বের করতে না পারায়, প্রতিপক্ষ তাকে ফাঁসানোর ব্যর্থ চেষ্টা করছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। এ মামলা নিছক মাছ না পেয়ে ছিঁপে কামড় বলে তিনি মন্তব্য করেন।
উল্লেখ্য, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মণিরামপুরের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্য ও তার পরিবারকে নিয়ে ফেসবুকে আলোচিত ’’জিলানী শেখ’’ নামের একটি আইডি থেকে বেশ কিছুদিন থেকেই কুরুচিপূর্ণ নানা স্ট্যাটাস দিয়ে স্যোসাল মিডিয়াতে ভাইরাল হয়েছে। ওই আইডি থেকে বিভিন্ন সময়ে প্রতিমন্ত্রী ও তার পরিবারবর্গের বিরুদ্ধে কুৎসা রটানোসহ নানা কর্মকান্ডের নগ্ন সমালোচনা করা হয়। এক পর্যায়ে সম্প্রতি ”জিলানী শেখ’’ আইডিটা মণিরামপুরে ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে।
অবশেষে ফেসবুকে আলোচিত ’’জিলানী শেখ’’ আইডি থেকে স্থানীয় সরকার ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী এবং তার পরিবারের সদস্যসহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির নামে সন্মানহানিক কর পোস্ট দেওয়া বুধবার যশোরের একটি আদালতে মানহানির অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য জিয়াউর রহমান জিয়া। যার মামলা নং ৯৭৮/২০। ওই মামলায় উল্লেখিত চার আওয়ামলীগ নেতাকে বিবাদি করা হয়। বিবাদীরা মণিরামপুরের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান মিকাইল হোসেনের অফিসে বসে ওই আইডি চালান বলে অভিযোগ আনা হয়। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের জন্য পিআইবিকে দায়িত্ব দেয়। এঘটনা জানাজানির পর হতেই শুরু হয় প্রতিবাদের ঝড়।

 


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022