1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

নারী এপিকে কুপ্রস্তাব ও প্রাণনাশের হুমকির ঘটনায় পিআইও স্ট্যান্ড রিলিজ : ইউএনও’র শাস্তি দাবি

  • আপডেট: রবিবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৭৩৭ দেখেছেন

মনিরুজ্জামান টিটো।।
অভয়নগরের উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শরীফ মো: রুবেলকে অবশেষে প্রত্যাহার পূর্বক দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের সংযুক্ত করা হয়েছে। ২৭ ডিসেম্বর রোববার অধিদপ্তরের ১৯.০১৪.১৯-১০৬৫ নং স্মারকে তাকে ২৭ ডিসেম্বর অধিদপ্তরে যোগদানের জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, অভয়নগরের উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিভিন্ন সময়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার মাধ্যমে নারী সহকারী প্রোগ্রামারকে কু প্রস্তাব দিতেন। তার কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়া তাকে নানাভাবে হয়রানীর পাশাপাশি অফিস সময়ের পরে নির্বাহী অফিসারের কক্ষে ডাকা হতো বলেও তিনি অভিযোগ করেন। অফিসে না গেলে তাকে নানা ভাবে হুমকি প্রদান করা হতো। আর একাজে ইউএনও’র সহযোগী ছিলেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শরীফ মো: রুবেল।
সম্প্রতি ওই ভুক্তভোগী নারী সহকারী প্রোগ্রামারকে প্রাণ নাশের হুমকি দিয়েছেন অভয়নগর উপজেলা প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকতা। তার এই হুমকির একটি অডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়ে পড়েছে সোস্যাল মিডিয়াতে। ওই অডিও কল রেকর্ডে পিআইও নিজেকে খুলনার সেরা রংবাজ বলে সহকারী প্রোগ্রামারকে ছিঁড়ে ফেলার হুমকি দেন।
লিখিত বক্তব্যে সহকারী প্রোগ্রামার বলেন, বর্তমান পিআইও সাহেবের মাধ্যমে স্যার বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ধরনের কুপ্রস্তাব দেয়াতেন (স্যারের হতাশা দুর করা এপি হিসেবে হিসেবে আমার দ্বায়িত্ব, এই হতাশা স্ত্রী না অন্য কোন নারী কাটাতে পারে,. আমি যেনো এই হতাশা কাটাই, স্যারকে যেন সঙ্গ দিই…) বর্তমান ইউএনও স্যার নিজেও বলেছেন উপজেলায় এপির কাজ তার আশেপাশে থেকে সব কাজ করা, টেকনিক্যাল কাজের বাইরেও অনেক কাজ থাকে সেগুলো করা এবং মুখে না বললেও অনেক কিছু বুঝে নিয়ে করা।
ওই সহকারী প্রোগ্রামার এঘটনায় নিজের নিরাপত্তা চেয়ে আবেদনের পর তাকে বৃহস্পতিবার ২৪ ডিসেম্বর তারিখে তথ্য ও প্রযুক্তি অধিদপ্তরের ৫৬.০৪.০০০০.০০৮.১৯.০০১.১৬.১৪৯৬ স্মারকে তাকে মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় উপজেলা কার্যালয়ে বদলির পাশাপাশি একই আদেশে আগারগাঁও ডিজিটাল নিরাপত্তা এজেন্সিতে সংযুক্তি করা
এদিকে সহকারী প্রোগ্রামারের অভিযোগে উল্লেখিত মুল অভিযুক্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হুসেইন খানের বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহনের খবর পাওয়া যায়নি। এতে করে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে সচেতন মহলে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ইউএনও’র দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে সোস্যাল মিডিয়াতে সোচ্চার দেখা গেছে নেটিজানদের।
এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, আমি অভিযোগটি শুনেছি। এটা তদন্ত না করে কিছু বলা যাবে না। তবে তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022