1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

মণিরামপুরে ইউপি চেয়ারম্যান ও জেলা পরিষদের কর্মচারীর যোগসাজসে রাস্তার গাছ চুরি

  • আপডেট: মঙ্গলবার, ১১ মে, ২০২১
  • ২৫১ দেখেছেন

আবু বক্কার সিদ্দীক, মণিরামপুর, যশোর থেকে।।
যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের (মণিরামপুর অংশের) মেহগনি গাছের লগ স’মিলে কাটাকালে হাতে-নাতে ধরা হয়েছে। উপজেলার কুয়াদা বাজারের খালেক স’মিল থেকে মেহগনি গাছের লগ ও তক্তা উদ্ধার করে জেলা পরিষদের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এসময় স’মিলের মিস্ত্রী ও মালিক স্বাক্ষরিত এক লিখিত স্বীকারোক্তিতে উপজেলার ভোজগাতি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও জেলা পরিষদের আল-আমিন নামের এক কর্মচারীর সংশ্লিষ্টতা উল্লেখ করেছে বলে জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার নিশ্চিত করেছেন।
তবে, চেয়ারম্যান দাবি করেছেন, তিনি লগ ওই কর্মচারীর কাছ থেকে কিনেছিলেন। সম্প্রতি যশোর – চুকনাগর মহাসড়ক প্রশস্তকরনসহ সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। এ কারনে মহাসড়কের দুই পাশের বিভিন্ন প্রজাতির গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। কেটে ফেলা গাছের মধ্যে বড় আকৃতির মেহগনি ও রেইনট্রি গাছ রয়েছে। এরমধ্যে আকৃতিতে বড় মেহগনি গাছ যার অধিকাংশের প্রতিটি গাছের মূল্য প্রায় লক্ষাধিক টাকা
বলে অনেকেই ধারনা করেন। রাস্তার এ গাছ নিজেদের দাবি করে সড়ক ও জনপদ বিভাগ, জেলা পরিষদ ও বনবিভাগের মধ্য টানাপড়েন চলে। এ সুযোগে মহাসড়কের কেটে ফেলা বড় আকৃতির মেহগনি, রেইনট্রিসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ হরিলুট হতে থাকে। এর আগেও জেলা পরিষদের অসাধু কর্মচারীর বিরুদ্ধে গাছের লগ চুরির অভিযোগ ছিল। উদ্ধারকৃত মেহগনি গাছের লগ ও তক্তাও একই ভাবে খালেক স’মিলে চুরি করে বিক্রি করা হয়েছে।
স’মিলের প্রধান মিস্ত্রী আব্দুল লতিফ বলেন, শনিবার আছরের নামাজের পর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও আল-আমিন নামের জেলা পরিষদের কর্মচারী আলমসাধুতে মেহগনি গাছের লগ নিয়ে আসেন। জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার এমএম মঞ্জুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চি করে জানান, এ ঘটনায় স’মিলের মিস্ত্রী আব্দুল লতিফ ও মিল মালিকের স্বাক্ষরিত একটি লিখিত স্বীকারোক্তি নেয়া
হয়েছে। যেখানে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও জেলা পরিষদের কর্মচারী আল-আমিনের নাম উঠে এসেছে।
জেলা পরিষদের প্রথান নির্বাহী মোঃ আরিফ উজ্জামান জানান, ঘটনা শুনেছি, তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল জানান, এ ঘটনায় যারাই জড়িত তাদের ছাড় দেয়া হবে না।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022