1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল মুসলিমা

  • আপডেট: শুক্রবার, ২৯ এপ্রিল, ২০১৬
  • ৫৫৭ দেখেছেন

 

মণিরামপুর অফিস:

মণিরামপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেল মুসলিমা (১৩)। শুক্রবার রাতে পৌর শহরের জয়নগরে নানা বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলছিল মুসলিমার। সে স্থানীয় মহাদেবপুর দাখিল মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী।
সূত্রমতে,কয়েক বছর আগে মুসলিমা,তার বড় এক বোন ও মা হালিমাকে রেখে অনত্র বিয়ে করে মুসলিমার পিতা হযরত আলী। সেই থেকে দুই মেয়েকে নিয়ে হালিমা জয়নগরে পিতা সাহেব আলী কবিরাজের বাড়িতে থেকে আকিজ জুট মিলে কাজ করে সংসার চালান। শুক্রবার রাতে উপজেলার কাশিপুর গ্রামের জনৈক এক যুবকের সাথে নানা বাড়িতে বিয়ের কার্যক্রম চলছিল মুসলিমার। খবর পেয়ে রাত ১০ টার দিয়ে পুলিশ নিয়ে সেখানে হাজির হন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল হাসান। এদিকে প্রশাসন আসার খবর পেয়ে বিয়ে বাড়ি ছেড়ে অনত্র পালিয়ে যায় বর পক্ষ। ফলে কোন প্রকার এ্যাকশনে না গিয়ে মুসলিমার লেখাপড়ার দায়িত্ব নিয়ে এবং নানা সাহেব আলী ও মামা মতলেবকে মুশলেকা দিয়ে ছেড়ে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল হাসান।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল হাসান জানান, খবর পেয়েছি শুক্রবার রাতে জয়নগরে সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া মুসলিমা নামের এক মেয়ের বিয়ে হচ্ছে। সেখানে গিয়ে ঘটনার সত্যতা পেয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে বর পক্ষের কাউকে পাওয়া না যাওয়ায় কোন ব্যবস্থা নেয়া যায়নি। তিনি আরও জানান, মুসলিমার বিয়ের বয়স না হওয়া পর্যন্ত তার লেখা পড়ার যাবতীয় খরচ সরকার বহন করবে মর্মে ঘোষনা দিয়েছি। তার মামা ও নানা ১৮ বছরের আগে তাকে বিয়ে দেবে না বলে আমাদের কথা দিয়েছেন।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022