1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

মণিরামপুরে ইউএনও’র মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে প্রতারনা : ইউপি চেয়ারম্যানের অর্থ খোয়া

  • আপডেট: সোমবার, ২৯ মে, ২০১৭
  • ২৭৯ দেখেছেন

বিশেষ প্রতিনিধি॥
মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের অফিসিয়াল মোবাইল নং ব্যবহার করে বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানদের সাথে প্রতারন করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একটি চক্র। সোমবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ অতুল মন্ডল স্বাক্ষরিক এক পত্রের মাধ্যমে এ ঘটনায় মণিরামপুর থানায় সাধারন ডায়েরী করা হয়।
জানা যায়, মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর ব্যবহৃত ০১৭৩৩০৭৪০৩৯ নং অফিসিয়াল মোবাইল ফোন নাম্বার ব্যবহার করে রোববার মণিরামপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নিস্তার ফারুককে ইউনিয়ন পরিষদের অনুকুলে বিশেষ বরাদ্দ পাইয়ে দেওয়া কথা বলে আশি হাজার টাকা উৎকোচ দাবি করা হয়। নিস্তার ফারুক উক্ত টাকা দিতে অস্বীকার করায় আবারো একই নাম্বার থেকে ফোন করে চল্লিশ হাজার টাকা দাবি করা হয়। এবার প্রকল্প পাওয়ার আশায় দাবিকৃত চল্লিশ হাজার টাকা তিনি চারটি নাম্বার থেকে বিকাশের মাধ্যমে পরিশোধ করেন। পরবর্তীতে সন্দেহ হলে তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নাম্বারে ফোন করে প্রতারনার বিষয়টি নিশ্চিত হন। তাৎক্ষণিক তিনি উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ অতুল মন্ডলের দপ্তরে হাজির হয়ে ঘটনাটি জানান। উপজেলা নির্বাহী অফিসার তার ব্যবহৃত অফিসিয়াল মোবাইল ফোন নাম্বার ব্যবহার করে একাধিকবার কল করে টাকা আত্মসাতের বিষয়টি শুনে স্থানীয় গ্রামীন ফোন কাস্টমার কেয়ারকে অবহিত করেন। এঘটনার পর দিন সোমবার একই ভাবে উপজেলার ভোজগাতী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক, শ্যামকুড় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনি, খেদাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান সরদার মুজিবুর রহমান, হরিহরনগর ইউপি চেয়ারম্যান গাজী আব্দুস সাত্তার ও মশ্বিমনগর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল হোসেনের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে কল করে একই পন্থায় টাকা দাবি করে। তারা তাৎক্ষনিকভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবহিত করেন। এঘটনার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ অতুল মন্ডল তার কার্যালয়ের এক স্মারকে ঘটনাটি সাধারন ডায়েরী ভুক্ত করতে থানার অফিসার ইনচাজকে জানান। ভোজগাতী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আমার কাছে ইউএনও পরিচয় দিয়ে টাকা চাওয়া ব্যক্তির মোবাইলে কণ্ঠস্বর ভিন্ন রকম হওয়ায় তাকে ধমক দিলে লাইনটি কেটে দেয়। আমারতো ইউএনও’র কণ্ঠস্বর জানা আছে, আর তিনি কেন টাকা চাইবে? এটা কোন চক্র টাকা আত্মসাতের নতুন প্রতারনা চালাচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয়কে জানানো হয়েছে। যে সকল নাম্বারে বিকাশের মাধ্যমে টাকা গ্রহন করা হয়েছে, সেগুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

 


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022