1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

রোগীর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে মণিরামপুর স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে হামলা .. ২ চিকিৎসকসহ আহত ৩.. আটক ১

  • আপডেট: বৃহস্পতিবার, ২৩ অক্টোবর, ২০১৪
  • ৫৮৪ দেখেছেন

মণিরামপুরে বাহিনী প্রধান বাবুল আকতার ওরফে পাগলা বাবুলের ভাইয়ের হার্ট-অ্যাটাকে মৃত্যুকে কেন্দ্র করে হাসপাতালের জরম্নরী বিভাগে হামলা চালিয়েছে তার ক্যাডারা। হামলায় জরম্নরী বিভাগের কর্তব্যরত ২ চিকিৎসক ও এক কর্মচারী গুরম্নত্বর জখম হয়। এছাড়া জরম্নরী বিভাগের দরজা-জানালা ও আসবাবপত্র ভাংচুর চালায় তারা। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। হামলা চলাকালীন সময় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ১ হামলাকারীকে আটক করেছে। এদিকে ঘটনার পরপরই হাসপাতালে স্বাস্থ্য কমিটির জরম্নরী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। অপরদিকে দোষীদের আটকের দাবিতে জেলা বিএমএ ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে।
প্রত্যÿদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, মণিরামপুরের এক সময়ের ত্রাস পাগলা বাবুলের আপন সহদোর তোয়াক্কেল(৩২) ঘটনার দিন বিকালে বুকে ব্যাথা অনুভব করলে পরিবারের সদস্যরা তাকে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপেস্নক্সে নিয়ে যায়। ওই সময় জরম্নরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে চিকিৎসা প্রদান করে। কিন্তু কিছুÿন পর তোয়াক্কেল মারা যায়। সে পার্শ্ববর্তী কামালপুর গ্রামের আমিন মোলস্নার পুত্র। নিহত তোয়াক্কেলকে বাড়ি নিয়ে যায় স্বজনরা। এরপর চিকিৎসকদের অবহেলার অভিযোগ তুলে রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাবুল বাহিনীর ক্যাডাররা লাঠি-সোটা ও দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হাসপাতালের জরম্নরী বিভাগের হামলা চালায়। এ সময় তাদের হামলায় জরম্নরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক রেহেনেওয়াজ ও নাজিম উদ্দীন এবং কর্মচারী ইব্রাহিম খলিল গুরম্নত্বর জখম হন। ওই সময় জরম্নরী বিভাগের দরজা-জানালা ও আসবাবপত্র ভাংচুর চালায় তারা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং হামলায় নেতৃত্বদানকারীদের অন্যতম নিহতের ভাই আক্তার হোসেনকে আটক করে। এদিকে পরপরই উপজেলা স্বাস্থ্য কমিটির জরম্নরী মিটিং-এ বসে। মিটিং-এ সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্য, উপজেলা চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন লাভলু, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোলস্না খবীর আহম্মেদ ও স্বাস্থ্য কমিটির সদস্য তুলসি বোস উপস্থিত ছিলেন। প্রত্যাÿদর্শীরা জানান, চিকিৎসকদের কোন অবহেলা ছিলনা। উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, অবিলম্বে দুষ্কৃতিকারীদের বিরম্নদ্ধে থানায় মামলার প্রস্ত্ততি চলছে। সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন, অন্যায়ভাবে হামলা চালানো দুর্বৃত্তদের কোন ছাড় দেয়া হবে না। এদিকে দোষীদের আটকের ২৪ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে জেলা বিএমএ।
23.10.2014


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022