1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল আয়েবাপিসি’র সাধারন সম্পাদক বকুল খানকে যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সংগঠনের সংবর্ধনা সাতবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের প্রকাশ্যে ঘুষ গ্রহন মণিরামপুর জুয়েলারী সমিতি পক্ষ থেকে কাউন্সিলর বাবুলাল চৌধুরীকে সংবর্ধনা মণিরামপুরের শীর্ষ ব্যবসায়ী রতন পালের স্ব-পরিবারে ভারত পাড়ি! কিন্তু কেন ?

ইউডিসি উদ্যোক্তাদের মামলায় এলজিআরডি সচিবসহ ৫ জনকে হাজির হওয়ার নির্দেশ

  • আপডেট: মঙ্গলবার, ১১ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৩০৭ দেখেছেন

বিশেষ প্রতিনিধি ।।
ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের পরিচালক/ উদ্যোক্তাদের অথাৎ পিটিশনারদের নিয়োগ না দেওয়া সংক্রান্ত রিট মামলায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের(এলজিআরডি) সচিবসহ ৫ জনকে স্বশরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।
সোমবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রিট মামলা নম্বর- ১১/২০১৭ নং শুনানী শেষে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি মোঃ ইমান আলীর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ শুনানী শেষে এই নির্দেশ দেন।
উচ্চ আদালতের তলবি নোটিশ প্রাপ্তরা হলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব  হেলালুদ্দীন আহমদ, সাবেক সচিব জনাব আব্দুল মালেক, উপ-সচিব ড. সৈয়দ নওশীন পর্ণিনী, বরগুনার জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ ও ডিডিএলজি জালাল উদ্দিন। তাদেরকে আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি বেলা ১১ টায় সংশ্লিষ্ট আদালতে স্বশরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।
এদিকে ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার পরিচালক ফোরামের পক্ষে কনটেমপ্ট পিটিশনার মোঃ মাহতাব আলীর গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।
আদালতে বাদীপক্ষে শুনানী করেন সিনিয়র আইনজীবী ও সাবেক এ্যাটনী জেনারেল জনাব ব্যারিস্ট্রার মি. ফিদা এম. কামাল ও জনাব এ্যাড. মোহাম্মদ আহসান। স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়েরর পক্ষে শুনানী করেন অবসর প্রাপ্ত বিচারপতি মোয়াজ্জেম হোসেন ও এ্যাড. রবিউল আলম। উল্লেখ্য উক্ত কনটেমপ্ট পিটিশনদ্বয় অদ্য আপীল বিভাগের ২নং আদালতের কার্যতালিকার ১নং ক্রমিকে বিদ্যমান ছিল।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তীতে উল্লেখ করা হয়, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ২০১০ সালের ১১ নভেম্বর ৪৫৫৪ টি ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্র (ডিজিটাল সেন্টার) স্থাপন করেন। তখন থেকেই তাঁরা বিনা বেতনে ইউনিয়ন পরিষদের সকল দাপ্তরিক কাজ করে আসছে। সেই সাথে নাম মাত্র মূল্যে জনগণের দোড়গোড়ায় সেবা দিয়ে কোন রকম জীবিকা নির্বাহ করছে।
একই কাজের জন্য ২০১৬ সালের ২৮ নভেম্বর ২,০০০ ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম-কম্পিউটার অপারেটর পদে জনবল নিয়োগের জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় পরিপত্র জারি করে।
এ বিষয়ে ময়মনসিংহ, বরগুনা, জামালপুর, মৌলভীবাজার, সিলেট, শেরপুর, কিশোরগঞ্জ, ফরিদপুর, সাতক্ষীরা ও মাদারীপুর জেলার ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের ১৮ জন পরিচালক/উদ্যোক্তা মহামান্য হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করেন, রিট পিটিশন নং ২৬৬৩/২০১৭।
পরবর্তীতে স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয় লিপ টু আপিল করে, যার নং ১১৬৭/২০১৭। গত ০৮/০৪/২০১৭ইং তারিখ মহামান্য সুপ্রীমকোর্টের আপিল বিভাগ উক্ত নিয়োগের ক্ষেত্রে রীট পিটিশনারদের অগ্রাধিকার দেওয়ার আদেশ প্রদান করেন।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও কতিপয় জেলা প্রশাসক উক্ত আদেশ অমান্য করে অন্যদের নিয়োগ প্রদান করায় পিটিশনারদের পক্ষে পৃথক দুটি কনটেমপ্ট মামলা দাখিল করা হয়। যার নং-১১/২০১৭ ও ০৪/২০২০।
তাছাড়া গত ০৩/০২/২০২০ইং তারিখ ০৪/২০২০ নং মামলা শুনানী শেষে কিশোরগঞ্জ, বরগুনা, মাদারীপুর, শেরপুর, জামালপুর, ময়মনসিংহ ও সাতক্ষীরা জেলার জেলা প্রশাসক, ডিডিএলজি ও মাদারীপুর জেলার সাবেক ডিডিএলজি ফারুক আহাম্মেদ এর প্রতি কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করেন।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022