1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
হাইকোর্টের নির্দেশে কেশবপুরে অবৈধ “রোমান ব্রিকস” ভেঙ্গে দিল প্রশাসন মাদ্রিদে হবিগঞ্জবাসীর মিলন মেলায় মুখরিত লাভপিয়েছ মণিরামপুরের জুড়ানপুর বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষককে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষরে বাঁধা মালিতে জাতিসংঘ শান্তিপদক পেলেন বাংলাদেশের ১৩৯ জন শান্তিরক্ষী কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা মণিরামপুরে সাবেক অধ্যক্ষ মাওলানা বজলুর রহমানের ইন্তেকাল

বেনাপোলে কোটি টাকা আত্মসাত।। আ’লীগ নেতাকে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে বেঁধে রাখলো শ্রমিকরা

  • আপডেট: সোমবার, ১ জুন, ২০২০
  • ৩১৩ দেখেছেন

বিশেষ প্রতিনিধি।।
বেনাপোল স্থলবন্দরের শ্রমিক সর্দার ও আওয়ামী লীগ নেতা রকিব উদ্দীন নকি মোল্লা শ্রমিকদের পাওনা ১ কোটি ৩২ লাখ টাকা আত্মসাত করার ঘটনায় টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে গোটা বন্দর এলাকায়।
অভিযুক্ত নকি মোল্লা বেনাপোল পৌরসভার বড়আচড়া ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বন্দরের ৮৯১ শ্রমিক ইউনিয়নের গ্রুপ সর্দার।
বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা সোমবার সকালে শ্রমিক সর্দার রকিব উদ্দীন নকি মোল্লাকে আটক করে সড়কের পাশের বৈদ্যুতিক খুঁটিতে পিঠ মোড়া করে বেঁধে রাখেন। পরে স্থানীয় প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপে আবারো টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিয়ে রক্ষা পায়।
বেনাপোল বন্দরের ৮৯১ হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের সামনে সাধারণ শ্রমিকরা তাকে বেঁধে ১ ঘন্টা রেধে রাখেন। খবর পেয়ে স্থানীয় প্রভাবশালী শ্রমিক ও আওয়ামী লীগের নেতারা ৭০ লাখ টাকা পরিশোধের চুক্তিতে তাকে মুক্ত করেন।
সাধারণ শ্রমিকরা বলেন, আমাদের রক্ত-ঘাম ঝরানো ১ কোটি ৩২ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন শ্রমিক সর্দার ও আওয়ামী লীগ নেতা রকিব উদ্দীন নকি মোল্লা। বারবার সময় নিয়ে প্রতারণা করছিলেন তিনি। অবশেষে আজ শ্রমিকরা টাকা আদায়ের জন্য তাকে বেঁধে রাখেন। পরে প্রভাবশালী শ্রমিক নেতা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাদের মাধ্যমে ৭০ লাখ টাকায় মীমাংসা করেছে। বাকি টাকা আমরা আর ফেরত পাব না বলে তারা জানিয়েছেন।
শ্রমিকরা বলেন, আমাদের পাওনা টাকা না দিয়ে, আত্মসাত করা টাকায় গরুর খাটাল, চারটি ট্রাক ও জমিজমা কিনেছেন নকি মোল্লা। সব সময় প্রভাবশালী শ্রমিক নেতাদের মাধ্যমে শ্রমিকরা শোষণ ও বঞ্চনার শিকার হয়ে আসছেন দীর্ঘদিন ধরে। প্রতিবাদ করলে কাজ হারাতে হয়। শ্রমিক নেতাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হলেও যাদের রক্ত-ঘাম ঝরিয়ে অর্থ আয় হয়, তাদের কোনো পরিবর্তন হয় না। সব সময় দুঃখ দুর্দশার মধ্য দিয়ে তাদের দিন পার করতে হয়।
বেনাপোল স্থলবন্দরের ৮৯১ শ্রমিক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি খলিলুর রহমান যুগান্তরকে জানান, স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা এসে তিন দফা বৈঠক করে ৭০ লাখ টাকা পরিশোধের অঙ্গীকার দিয়ে নকি মোল্লাকে ছাড়িয়ে নিয়েছেন।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022