1. admin@manirampurprotidin.com : admin :
  2. hnurul146@gmail.com : nurul :
  3. titonews24@gmail.com : Tito :
শিরোনাম :
অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেসক্লাবের ভার্চুয়াল সাধারণ সভা অনুিষ্ঠত : অভিষেকের প্রস্তুতি হাইকোর্টের নির্দেশে কেশবপুরে অবৈধ “রোমান ব্রিকস” ভেঙ্গে দিল প্রশাসন মাদ্রিদে হবিগঞ্জবাসীর মিলন মেলায় মুখরিত লাভপিয়েছ মণিরামপুরের জুড়ানপুর বালিকা বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষককে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষরে বাঁধা মালিতে জাতিসংঘ শান্তিপদক পেলেন বাংলাদেশের ১৩৯ জন শান্তিরক্ষী কেশবপুর উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মণিরামপুরে সাংবাদিক পুত্র মাহির গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ মণিরামপুরে ইকবালকে কমিটি গঠন কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ : রোহিতার আহ্বায়ক বহিষ্কার মণিরামপুরে ২দিন ব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার শুভ উদ্বোধন মণিরামপুরে গ্রাম ডাক্তারের ভুল চিকিৎসায় স্কুল ছাত্রীর হাতে পঁচন ।। আদালতে মামলা

মণিরামপুরে সরকারি সুবিধা দেয়ার নামে আ’লীগ নেতা ও ইউপি মেম্বারের অর্থ বাণিজ্য

  • আপডেট: বুধবার, ১০ জুন, ২০২০
  • ৩৬৫ দেখেছেন

হাবিবুর রহমান, রোহিতা থেকে।।
বয়স্ক, বিধবা, মাতৃত্বকালীন ভাতা ও ঘরসহ বিভিন্ন সরকারি সুবিধা পাইয়ে দেয়ার নামে জনগনের কাছ থেকে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে আওয়ামীলীগ ও ইউপি সদস্য নিখিল দাসের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে যশোরের মনিরামপুর উপজেলার ২নং কাশিমনগর ইউনিয়ানের ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যের বেলায়। সরেজমিনে জানা যায়, ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নিখিল দাস নিজের ওয়ার্ডে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের দেয়া বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে কাজ করে আসছে। সেই সুযোগে অসহায় ও হতদরিদ্র মানুষের জন্য বয়স্ক, বিধবা, মাতৃত্বকালীন ভাতা সহ ঘর ব্যবস্থা করে দেয়ার নামে চাহিদার অতিরিক্ত ব্যক্তিদের কাছ থেকে কৌশলে ৬ থেকে ১০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। অভিযোগ উঠেছে যারা বেশী অর্থ দেন তাদেরকেই শুধু ভাতার কার্ড করে দেয়া হয়। অন্যান্যদের কার্ড করে দিবে মর্মে ২/৩ বছর যাবৎ ঘুরালেও অদ্যবধি কার্ডের ব্যবস্থা করেনি । এদিকে ওই ইউপি সদস্যের কাছে কার্ডের অনুকুলে টাকা ফেরত চাইলে তারা নানা হুমকী ধামকীও দিয়ে আসছে বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন। ইত্যা স্কুলপাড়া গ্রামের ভুক্তভোগী জিয়াউল ইসলাম,কালু হোসেন, ও হাবড়া পাড়ার আব্দুল করিম,ইত্যা দাসপাড়ার অসোখ দাস,গীতা রানী,তরুবালা সহ বেশ কয়েকজনকে ঘর,বিধবা ও বয়স্ক ভাতার সুবিধা পেতে ৬ থেকে ১০ হাজার টাকা, তবে গত ৩ বছরে ভাতার কার্ড বা কার্ডের অনুকুলে ইউপি সদস্যের গ্রহন করা টাকা ফেরত চাইলে ভুক্তভোগীদের নানা হুমকী-ধামকী দিয়ে আসছে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য । এ ঘটনার প্রতিকার চেয়েছে ভুক্তভোগী পরিবার। এবিষয়ে নিখিল দাসের কাছে জানতে চাহলে তিনি জানান, আমি এই ধরনের কোন সরকারী ঘর দেয়ার নামে কারও কাছ থেকে টাকা নেয়নি। এ প্রসঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান জিএম আহাদ আলী বলেন, ইউপি সদস্য কার্ড ও ঘর দেয়ার নামে টাকা নিয়েছে কিনা আমি জানিনা। তবে এধরনের অভিযোগ কোন ব্যক্তিই আমার জানালে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।
এ প্রসঙ্গে মনিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আহসান উল্লাহ শরিফী প্রতিবেদককে বলেন, সরকারি সুবিধা পাইতে ঘুষ দিতে হয়না, বিষয়টি আপনাদের কাছে জানতে পারলাম। তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।


এ খবর টি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

এ জাতীয় আরও খবর




© All rights reserved © 2013-2022